টেকইনফো এ-আই https://www.techinfoai.com/2022/05/chul-ghono-korar-upay-somuho.html

চুল ঘন করার উপায় কি?

চুল ঘন করার উপায়

দিন দিন চুল পড়ে মাথায় টাক হয়ে যাচ্ছে তাই চুল ঘন করার উপায় খুঁজছেন? চুল ঘন করার উপায় জানার আগে আমাদের চুল সম্পর্কে জানা জরুরী। চুল হচ্ছে ত্বকের বহিঃস্তরে অবস্থিত ফলিকল থেকে উৎপন্ন এক ধরনের চিকন লম্বা সুতার মতো প্রোটিন তন্তু।

চুল সাধারণ ক্যারাটিন নামক উপাদান দিয়ে গঠিত। চুলে মেলানিনও রয়েছে, যা চুলকে তার রং দেয় । এছাড়া চুলে ভিটামিন, জিঙ্ক এবং অন্যান্য ধাতব পদার্থের উপস্থিতিও রয়েছে। চুল মানুষের সৌন্দর্যকে ধারন করে। চুল মানুষকে আত্ববিশ্বাসী করে তুলতেও সাহায্য করে।

খায়রুন লো তোর লম্বা মাথার কেশ গানের আবেদন যেমন এখনো ফুরিয়ে যায়নি, তেমনি ঘন, কালো ও লম্বা চুলের কদরও কখনো ফুরাবে না। একজন মানুষকে সুন্দর দেখাতে ঘন চুলের বিকল্প নেই। চুল ঘন করার উপায় জানার আগে চুল পাতলা হওয়ার কারণ জেনে নেয়া যাক।

    চুল পাতলা হওয়ার কারণ

    চুল পাতলা হওয়ার কারণ

    একজন সুস্থ মানুষের মাথায় গড়ে এক থেকে দেড় লাখ চুল থাকে। প্রতিদিন ১০০ থেকে ১৫০টা পর্যন্ত চুল পড়া স্বাভাবিক। সাধারণ এর চেয়ে বেশি চুল পড়লে চুলের ঘনত্ব কমে গিয়ে চুল পাতলা হয়। চুল পাতলা হওয়ার অনেক কারণ রয়েছে। অনেকের জন্মগতভাবে চুল পাতলা হয়ে থাকে।

    বয়স বাড়ার কারণে বা বংশগত কারণেও চুল পাতলা হতে পারে। ভিটামিন বি, সি, ডি ও ই -এর অভাবেও চুল পাতলা হতে পারে। চুল পাতলা হওয়ার আরেকটি কারণ হচ্ছে দুশ্চিন্তা। দুশ্চিন্তায় ভুগলে বা মানসিক সমস্যা থাকলে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি চুল পড়তে পারে।

    সাধারণ শরীরের পুষ্টির ওপর চুলের স্বাস্থ্য নির্ভর করে। দৈনিক খাদ্য তালিকায় আমিষ, শর্করা, চর্বি, খনিজ ও ভিটামিন পরিমিত পরিমাণে না থাকলে চুল পাতলা হয়। হরমোনের কমবেশি হওয়ার কারণে চুল পাতলা হতে পারে। সাধারণ থাইরয়েড হরমোনের মাত্রা কম বা বেশি হলে, গর্ভবতী অবস্থায় বা বাচ্চার জন্মের পর হরমোনের ভারসাম্য পরিবর্তিত হলে চুল বেশি পড়ে, ফলে চুল পাতলা হয়।

    কোনো কোনো ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় চুল পড়ে গিয়ে পাতলা হতে পারে, যেমন: জন্মনিয়ন্ত্রণের বড়ি, প্রেসারের ওষুধ, রক্ত তরলীকরণের ওষুধ, হরমোন, মানসিক অসুস্থতার ওষুধ ইত্যাদি। চুল পাতলা হওয়ার কারণ জেনে গেলেন, এবার চুল ঘন করার উপায় জানা যাক।

    আরও পড়ুনঃ নবজাতক শিশুর যত্ন এবং শিশুর জন্মের পরে ভারনিক্স কি কি কাজ করে?

    চুল ঘন করার উপায়

    চুল ঘন করার উপায়

    চুল ঘন করার অনেক উপায় রয়েছে। বিভিন্ন ঘরোয়া ও প্রাকৃতিক উপায়ে চুল ঘন করা যায়। চুল ঘন করার বিভিন্ন শ্যাম্পু, ওষুধ ও তেলও রয়েছে। আজ আমরা চুল ঘন করার সেরা উপায়গুলোই জানিয়ে দিব । তাই শুরু‌ থেকে শেষ পর্যন্ত পুরো আর্টিকেলটি মনোযোগ দিয়ে পড়ুন।

    অ্যালোভেরা দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    অ্যালোভেরা দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    চুল ঘন করার মহাষৌধ হচ্ছে অ্যালোভেরা। অ্যালোভেরার জেল দিয়ে সহজেই চুল ঘন করা যায়। এজন্য প্রথমেই অ্যালোভেরার জেল বের করে নিন, এর সাথে ৪ টেবিল চামচ মধু মিক্স করে সরাসরি চুলে ও মাথার তালুতে লাগান। আপনি চাইলে এর সাথে অন্য কোনও ট্রিটমেন্ট ক্রিমও যোগ করতে পারেন। এটি চুল ঘন করার সাথে সাথে চুলের আগা ফেটে যাওয়াও রোধ করবে।

    আরও পড়ুনঃ ছেলেদের ইসলামিক নাম অর্থসহ তালিকা ২০২২

    ডিম দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    ডিম দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    চুল ঘন করার পাশাপাশি আপনি যদি চুল লম্বা করতে চান তাহলে ডিম ব্যবহার করতে পারেন। ডিমে রয়েছে প্রাকৃতিক প্রোটিন, সালফার, জিংক, আয়রন, ফসফরাস ও আয়োডিন যা চুলকে ঘন করতে সাহায্য করে। চুলের ঘনত্ব ও দৈর্ঘ্য অনুযায়ী একটি বা দুটি ডিমের সাদা অংশ নিন।

    এবার ডিমের সাদা অংশ পুরো চুলে ভালোভাবে লাগান। ২০-২৫ মিনিট রেখে ঠান্ডা পানিতে চুল ধুয়ে নিন, তারপর শ্যাম্পু করুন। এভাবে সপ্তাহে ২ বার ব্যবহার করুন, এতে চুল হবে শক্ত, ঘন ও লম্বা।

    কালোজিরার তেল দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    কালোজিরার তেল দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    কালোজিরার গুনের শেষ নেই। নতুন চুল গজানোর জন্য কালোজিরার তেল বেশ কার্যকর। এটি চুলে পুষ্টি জোগায় ও চুল পড়া বন্ধ করে। কালোজিরার তেলের সাথে নারিকেল তেল মিক্সড করে নিয়মিত ব্যবহার করুন, ভালো ফল পাবেন।

    ক্যাপসিকাম দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    ক্যাপসিকাম দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    শুনতে অবাক লাগলেও চুল ঘন করতে ক্যাপসিকাম বেশ কার্যকরী। ফুটন্ত পানিতে একটি ক্যাপসিকাম ছেড়ে দিন । ৫-১০ মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপর চুলা থেকে নামিয়ে ঠান্ডা করুন। এবার ক্যাপসিকাম মিশ্রিত পানি ভালোভাবে মাথায় ম্যাসাজ করুন, ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এভাবে সপ্তাহে দুইবার এটি ব্যবহার করুন, ১ মাসের মধ্যে চুলের পাতলা ভাব অনেকটাই কমে আসবে।

    আমলকী দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    আমলকী দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    চুল ঘন করার উপায় হিসেবে আমলকীর ব্যবহার বহুবিধ। এটি চুলকে ঘন করার পাশাপাশি চুলের গোঁড়া শক্ত করতে, চুল পড়া কমাতে ও চুলের স্বাভাবিক রঙ ঠিক রাখতে সাহায্য করে। বাজার থেকে আমলা তেল না কিনে নিজেই ঘরে আমলা তেল তৈরি করে চুলে লাগান, উপকার পাবেন।

    জবা ফুলের প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    জবা ফুলের প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    দ্রুত চুল ঘন করতে জবা ফুলের প্যাক ব্যবহার করতে পারেন। প্যাকটি তৈরি করতে ১০-১৫ টি জবা ফুল, ১ কাপ কারি পাতা ও ৫০০ গ্রাম নারিকেল তেল লাগবে। প্রথমে জবা ফুলের পাপড়ি ও কারি পাতা ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে নিন। এবার একটি পাত্রে নারিকেল তেল গরম করে তাতে জবা ফুলের পাপড়ি ও কারি পাতা দিয়ে হালকা আঁচে নাড়তে থাকুন।

    ১০ মিনিট পর নামিয়ে নিন। ঠান্ডা হয়ে গেলে একটি পাত্রে ছেঁকে রেখে দিন। প্যাকটি প্রতিদিন রাতে শোবার আগে ৫ মিনিট ধরে স্ক্যাল্পে ম্যাসাজ করুন, এতে চিরতরে চুল পড়া বন্ধ হবে পাশাপাশি দ্রুত নতুন চুল গজাতে শুরু করবে।

    আরও পড়ুনঃ জীবন বীমা কি এবং বাংলাদেশের লাইফ ইন্সুরেন্স কম্পানির তালিকা

    মধু দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    মধু দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    চুল ঘন করতে মধু বেশ কার্যকরী। এটি মাথার ত্বকের জন্য খুব ভালো ময়েশ্চারাইজার হিসেবে কাজ করে। মধু চুলকে ভেতর থেকে শক্তিশালী করে আর নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে। এটি ব্যবহার করাও সহজ। ৪-৫ চামচ মধু নিয়ে পুরো মাথার ভালোভাবে ম্যাসাজ করুন। ১৫ মিনিট রেখে শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন, চুল হবে ঘন ও বাউন্সি ।

    মেথি দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    মেথি দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    চুল ঘন করার উপায় হিসেবে মেথির ব্যবহার অনেক পুরনো। মেথি চুল পড়া রোধ করে ও চুলের গোড়া মজবুত রাখে। এটি খুশকি সমস্যা দূর করতেও বেশ কার্যকর। চুলের ঘনত্ব ও দৈর্ঘ্য অনুযায়ী পরিমাণ মতো মেথি সারারাত ভিজিয়ে রাখুন। সকালে ভালোভাবে বেটে চুলের গোঁড়ায় ম্যাসাজ করুন। এক ঘন্টা পর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে শ্যাম্পু করুন। এভাবে প্রতি সপ্তাহে একবার ব্যবহার করুন, চুল দ্রুত ঘন হবে।

    পেঁয়াজ দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    পেঁয়াজ দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    চুল ঘন করার একটি শতভাগ কার্যকর উপায় হচ্ছে পেঁয়াজ। চুল ঘন করতে সপ্তাহে অন্তত ৩-৪ দিন মাথার তালুতে ১৫ মিনিট ধরে পেঁয়াজ ঘষুন। আঘাতজনিত কারণে অথবা অন্য কোন কারনে মাথার কোন অংশে চুল না থাকলে পেঁয়াজ ব্যবহার করে দেখুন! পেঁয়াজ মাথার ত্বকে রক্ত সঞ্চালন বাড়িয়ে খুব তাড়াতাড়ি নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে।

    জেলাটিন দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    জেলাটিন দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    জেলাটিন সাধারণত জেলি তৈরির কাজে ব্যবহার করা হয়। তবে চুল ঘন করতেও এটি বেশ কার্যকর। বাজারে সাধারণত ২ রকম জেলাটিন পাওয়া যায়, ফ্লেভার সহ এবং ফ্লেভার ছাড়া। চুল ঘন করার উপায় হিসেবে ফ্লেভার ছাড়া জেলাটিন ব্যবহার করাই ভালো। দুভাবে জেলাটিন ব্যবহার করতে পারেন। শ্যাম্পুর সাথে মিশিয়ে ব্যবহার করতে পারেন, অথবা আলাদাভাবে প্যাক হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন।

    গরম পানিতে জেলাটিন নরম করে নিন, এরপর আপনার শ্যাম্পুর সাথে মিশিয়ে ফেলুন। প্রতিবার শ্যাম্পু করার পূর্বে বোতল ভালো ভাবে ঝাকিয়ে নিন, তারপর ব্যবহার করুন। প্যাক হিসেবে ব্যবহার করার জন্য গরম পানিতে জেলাটিন দিয়ে তা ধীরে ধীরে নেড়ে মিশিয়ে নিন, তারপর চুলে লাগান। নিয়মিত জেলাটিন ব্যবহারে আপনার চুল হবে ঘন ও মজবুত।

    আরও পড়ুনঃ Techinfoai ওয়েব সাইটে বাংলা আর্টিকেল লিখে যেভাবে ইনকাম করবেন!

    আলুর রস দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    আলুর রস দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    সহজে চুল ঘন করতে চাইলে আলুর রস ব্যবহার করতে পারেন। আলুতে রয়েছে ভিটামিন এ, বি ও সি যা চুলকে ঘন করার পাশাপাশি চুলের দ্রুত বৃদ্ধিতে সহায়ক। প্রথমে একটি আলু ব্লেন্ড করে রস বের করে নিন। এবার এই রস চুলের গোঁড়ায় ও মাথার ত্বকে ভালোভাবে লাগান। ১৫-২০ মিনিট রেখে শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে সপ্তাহে দুই থেকে তিনবার ব্যবহার করুন, ভালো ফল পাবেন।

    কলার প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    কলার প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    চুল ঘন করার আরেকটি উপায় হচ্ছে কলার প্যাক। প্যাকটি তৈরি করতে প্রথমে একটি পাকা কলা ব্লেন্ড করে নিন। এরপর এতে দুই চা চামচ অলিভ অয়েল, দুই চা চামচ লেবুর রস এবং দুই চা চামচ নারকেল তেল মেশান। এবার সম্পূর্ণ প্যাকটি ভালো করে চুলে লাগিয়ে রাখুন। ১৫-২০ মিনিট পর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন, ফল পাবেন হাতেনাতে।

    স্ট্রবেরির প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    স্ট্রবেরির প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    চুল ঘন করতে স্ট্রবেরির প্যাক ভালো কাজ করে। ৫-১০ টি স্ট্রবেরি ভালো করে ধুয়ে থেঁতলে নিন।এরসাথে দুই চামচ মধু, দুই চামচ অলিভ অয়েল এবং দুই চামচ বাদাম তেল মিশিয়ে নিন। এবার এই প্যাকটি চুলে ব্যবহার করুন। ২০ মিনিট পর ঠান্ডা পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন, দ্রুত চুল ঘন হবে।

    ক্যাস্টর অয়েলের প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    ক্যাস্টর অয়েলের প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    চুলের যত্নে ক্যাস্টর অয়েল দারুন কার্যকরী। এটি চুল ঘন ও লম্বা করতে সাহায্য করে। প্যাকটি তৈরি করতে ১২৫ মিলি ক্যাস্টর অয়েল, ৭ টেবিল চামচ আলমন্ড অয়েল (কাঠবাদামের তেল) ও ৫ টেবিল চামচ সিসেমি অয়েল (তিলের তেল) লাগবে।

    একটি পরিষ্কার পাত্রে সবগুলো তেল মিক্সড করে নিন। এবার এই তেল চুলের গোঁড়ায় ও পুরো মাথার ত্বকে ভালো করে ঘষে লাগান। সর্বোত্তম ফল পেতে ৪-৫ ঘন্টা একটি প্ল্যাস্টিকের পলিথিন মাথায় পেঁচিয়ে রাখুন। এরপর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে সপ্তাহে দুইবার প্যাকটি ব্যবহার করুন, চুল ঘন হবেই।

    আরও পড়ুনঃ বিজ্ঞান বিষয়ক সাধারণ জ্ঞান প্রশ্ন ২০২২

    মেহেদী ও টক দইয়ের প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    মেহেদী ও টক দইয়ের প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    চুল ঘন করতে মেহেদী পাতার জুরি নেই। এক কাপ শুকনো মেহেদী গুড়ো ও আধা কাপ টকদই ভালো করে মিশিয়ে নিন। এবার মিশ্রণটি চুলের আগা থেকে গোঁড়া এবং মাথার ত্বকে ভালো করে লাগান। শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত চুলে লাগিয়ে রাখুন। শুকিয়ে গেলে শ্যাম্পু করে চুল ধুয়ে ফেলুন। এই মিশ্রণটি সপ্তাহে ১ দিন ব্যবহার করুন, হাতেনাতে ফল পাবেন।

    মেহেদী ও সরিষার তেলের প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    মেহেদী ও সরিষার তেলের প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    চুল ঘন করতে মেহেদী ও সরিষার তেলের প্যাক ব্যবহার করতে পারেন। প্যাকটি তৈরি করতে ১০০ গ্ৰাম মেহেদী পাতা ও ২৫০ গ্ৰাম সরিষার তেল লাগবে। প্রথমে একটি পাত্রে সরিষার তেল গরম করে নিন, এরপর এতে মেহেদী পাতা দিয়ে ৫-১০ মিনিট ভালো করে ফুটিয়ে নিন।

    চুলা থেকে নামিয়ে ঠান্ডা করুন। ঠান্ডা হলে ছাঁকনি দিয়ে ছেঁকে মেহেদী পাতা ও তেল আলাদা করুন। এবার এই প্যাকটি চুলের গোঁড়ায় ও মাথার ত্বকে ভালো করে লাগান। ১ ঘণ্টা পর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন, এতে চুল হবে ঘন ও শাইনি। সর্বোত্তম ফল পেতে প্যাকটি প্রতিদিন ব্যবহার করুন।

    আদা ও নারিকেল তেলের প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    আদা ও নারিকেল তেলের প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    চুল ঘন করতে আদা ও নারিকেল তেলের প্যাক ব্যবহার করতে পারেন। আদা ও নারিকেল তেলের প্যাক চুলের গোড়া মজবুত করার পাশাপাশি নতুন চুল গজাতেও সাহায্য করে। প্যাকটি তৈরি করতে প্রথমে ২০০ গ্রাম নারকেল তেল ও ৫০ গ্রাম আদা থেঁতলে নিন। এবার একটি পাত্রে থেঁতলানো আদা ও নারকেল তেল গরম করুন।

    কম আঁচে ২০-২৫ মিনিট ধরে নাড়তে থাকুন। এরপর চুলা থেকে নামিয়ে ঠান্ডা করুন। ঠান্ডা হয়ে গেলে একটি পাত্রে ছেঁকে নিন। আদা ও নারিকেল তেলের প্যাক তৈরি হয়ে গেল। প্রতিদিন রাতে শোবার আগে এই প্যাকটি আপনার স্ক্যাল্পে ম্যাসাজ করুন। সকালে শ্যাম্পু করে নিন। ১ মাসের মধ্যে আপনার চুল হবে ঘন ও মজবুত।

    ডিম, অলিভ অয়েল ও মধুর প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    ডিম, অলিভ অয়েল ও মধুর প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    চুল ঘন করতে ডিম, অলিভ অয়েল ও মধুর প্যাক ব্যবহার করতে পারেন। চুলের ঘনত্ব বাড়াতে প্যাকটি দারুন কার্যকর। প্যাকটি তৈরি করতে ১ টি ডিমের সাদা অংশ, ১ চা চামচ অলিভ অয়েল (জলপাই তেল) ও ১ চা চামচ মধু লাগবে। প্রথমে এই তিনটি উপকরণ ভালোভাবে মিক্সড করুন।

    তারপর পেস্ট তৈরি করুন। এবার প্যাকটি পুরো চুলে ও মাথার ত্বকে আলতো ঘষে লাগান। ২০ মিনিট পর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে শ্যাম্পু করে ফেলুন। এভাবে সপ্তাহে অন্তত ১ বার প্যাকটি ব্যবহার করুন, উপকার পাবেন।

    চুল ঘন করার শ্যাম্পু

    চুল ঘন করার শ্যাম্পু

    চুল ঘন করতে সানসিল্ক লাশাসলি থিক অ্যান্ড লং শ্যাম্পু , লোটাস হারবাল কেরাভিডা হেনাপুরা শ্যাম্পু, আড়ং হারবাল শ্যাম্পু, হিমালয় অ্যান্টি হেয়ার ফল শ্যাম্পু, অ্যারোমা ম্যাজিক ত্রিফলা শ্যাম্পু, ত্রিচাপ হেলদি লং অ্যান্ড স্ট্রং হারবাল শ্যাম্পু, ভাডি হারবাল হেনা শ্যাম্পু উইথ গ্রিন টি এক্সট্রাক্ট ইত্যাদি শ্যাম্পু থেকে আপনার চুলের ধরন অনুযায়ী যেকোন একটি শ্যাম্পু ব্যবহার করতে পারেন ।

    এই শ্যাম্পুগুলো চুল ঘন করার জন্য বিশেষ ভাবে তৈরি করা, পাশাপাশি অকালে চুল পাকা রোধ করতে, চুলের গোড়া মজবুত করতে, চুল লম্বা করতে ও চুল পড়া রোধে বেশ কার্যকরী। এগুলোর ব্যবহার বিধিও কম বেশি সবার জানা। গোসলের সময় পরিমাণ মতো শ্যাম্পু হাতে ঢেলে পুরো চুলে সমানভাবে মাখুন। এরপর আলতো করে ম্যাসাজ করুন। এবার পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সর্বোত্তম ফল পেতে প্যাকেটের গায়ে দেয়া নির্দেশনা মোতাবেক ব্যবহার করুন, কিছুটা হলেও উপকার পাবেন।

    আরও পড়ুনঃ সূরা দোয়া কুনুত বাংলা উচ্চারণ ২০২২

    চুল ঘন করার তেল

    চুল ঘন করার তেল

    অনেকেই ঝামেলা এড়াতে চুল ঘন করার তেল খুঁজে থাকেন। বাজারে অনেক ধরনের তেল পাওয়া যায়। তবে কোন তেল ব্যবহার করা ভালো, কোনটা খারাপ তা নিয়ে অনেকেই দ্বিধায় ভুগেন। আমি আপনাকে তিনটি তেলের নাম জানিয়ে দিব।

    1. (এক) চুল ঘন করতে Emami kesh king hair oil ব্যবহার করতে পারেন। এটি ২১ টি আয়ুর্বেদিক উপাদানে তৈরি করা হয়। যা চুল পড়া রোধ করে, দ্রুত চুল বৃদ্ধি পেতে সাহায্য করে, চুলকে মজবুত ও ঘন করে, মাথার ত্বকে সংক্রমণ রোধ করে, রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি করে নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে। আমার পরিচিত অনেকেই এই তেল ব্যবহার করে উপকার পেয়েছে। Emami ভারতের একটি শীর্ষস্থানীয় কোম্পানি। বর্তমানে এই কোম্পানি বাংলাদেশেও পন্য উৎপাদন করে। বাজারের অনেক দোকানে Emami kesh king hair oil পাওয়া যায়। দোকানে না পেলে দারাজ থেকে কিনতে পারেন। দারাজে ১০০ মিলি Emami kesh king hair oil কিনতে ১৭০ টাকা লাগবে।‌
    2. (দুই) চুলের ঘনত্ব বাড়াতে Tasmery arnica plus hair oil ব্যবহার করতে পারেন। এটি হারবাল উপাদানে তৈরি করা হয়। যা চুল পড়া রোধ করে, অকালপক্কতা নিবারণ করে, নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে, চুলের রং স্বাভাবিক রাখে, চুলকে কোমল, মসৃণ ও সুন্দর করে, খুশকি দুর করে ও চুলের গোড়া শক্ত করে। Tasmery arnica plus hair oil চুলে ব্যবহারের পাশাপাশি এতে থাকা হোমিও ওষুধও সেবন করবেন। এটি বাংলাদেশী পণ্য, বাজারের যেকোন দোকানে সহজেই পেয়ে যাবেন। দোকানে ২০০ মিলি Tasmery arnica plus hair oil কিনতে ১৫৫ টাকা লাগবে।
    3. (তিন) যাদের চুল পড়তে পড়তে মাথায় টাক হয়ে যাচ্ছে কিন্তু চুল পড়া বন্ধ হচ্ছে না তারা Genevie Hair Tonic oil ব্যবহার করতে পারেন। এটি চুল কালো করে, হেয়ার ড্যামেজ রিপেয়ার করে, চুল পড়া বন্ধ করে, নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে, চুলের আগা ফাটা রােধ করে, পাতলা চুল ঘন করে ও খুশকি দূর করে। এটি থাইল্যান্ডের পণ্য, দারাজে অর্ডার করলেই পেয়ে যাবেন। দারাজে ১২০ মিলি Genevie Hair Tonic oil কিনতে ৪৫০ টাকা লাগবে। যেকোন তেল ব্যবহারের আগে কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে কিনা দেখে নিন, এরপর প্যাকেটের গায়ে দেয়া নির্দেশনা অনুযায়ী ব্যবহার করুন।

    চুল ঘন করার ঔষধ

    চুল ঘন করার ঔষধ

    যারা চুল ঘন করার ঔষধ খুঁজছেন তাদের প্রতি আমার পরামর্শ হলো চুল ঘন করার জন্য সরাসরি কোন ঔষধ সেবন না করাই উত্তম। তবে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী মিনােক্সিডিল ব্যবহার করতে পারেন। বাংলাদেশে বিভিন্ন কোম্পানির মিনােক্সিডিল পাওয়া যায়। এরমধ্যে স্কয়ার এর স্পলেনেডােরা, ইনসেপ্টার জেনেগ্রা, জিসকা ফার্মার ট্রুগেইন অন্যতম ।

    মিনােক্সিডিল ছেলেদের জন্য ৫% এবং মেয়েদের জন্য ২%। এটি অবশ্যই নিয়মিত ব্যবহার করবেন। চুলের যেকোনো সমস্যায় ভিটামিন ই-ক্যাপসুল খেতে পারেন, এরসঙ্গে ভিটামিন বি, সি ও ডি খাওয়া যেতে পারে। এগুলো চুলের গোঁড়া শক্ত করতে ও নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে। এছাড়া চুলের স্বাস্থ্য ঠিক রাখতে নিয়মিত শাকসবজি, ফলমূল ও পুষ্টিকর খাবার খান। প্রতিদিন রাত ১০টার মধ্যে ঘুমানোর অভ্যাস করুন। যারা চুল ঘন করার হোমিও ওষুধ খুঁজছেন তাদের প্রতিও আমার পরামর্শ একই থাকবে। চুলের সমস্যা খুবই প্রকট হলে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে পারেন। chul ghono korar upay, Aloe vera diye chuler jotno, চুল ঘন করার তেলের নাম, Chul boro korar shampoo

    শেষ কথা

    আজকে আমরা আপনাদের চুল ঘন করার উপায় ২০২২ সম্পর্কে জানানোর চেষ্টা করেছি । যারা পুরো আর্টিকেলটি মনোযোগ দিয়ে পড়েছেন তারা এতক্ষণে চুল পাতলা হওয়ার কারণ, অ্যালোভেরা দিয়ে চুল ঘন করার উপায়, ডিম দিয়ে চুল ঘন করার উপায়, কালোজিরার তেল দিয়ে চুল ঘন করার উপায়, ক্যাপসিকাম দিয়ে চুল ঘন করার উপায়, আমলকী দিয়ে চুল ঘন করার উপায়, জবা ফুলের প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়, মধু দিয়ে চুল ঘন করার উপায়, মেথি দিয়ে চুল ঘন করার উপায়,

    পেঁয়াজ দিয়ে চুল ঘন করার উপায়, জেলাটিন দিয়ে চুল ঘন করার উপায়, আলুর রস দিয়ে চুল ঘন করার উপায়, কলার প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়, স্ট্রবেরির প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়, ক্যাস্টর অয়েলের প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়, মেহেদী ও টক দইয়ের প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়, মেহেদী ও সরিষার তেলের প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়, আদা ও নারিকেল তেলের প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়

    ডিম, অলিভ অয়েল ও মধুর প্যাক দিয়ে চুল ঘন করার উপায়, চুল ঘন করার শ্যাম্পু, চুল ঘন করার তেল, চুল ঘন করার ঔষধ কি? তা জেনে গেছেন। এখান থেকে আপনার পছন্দের ট্রিটমেন্টটি ট্রাই করে দেখুন! এছাড়া আপনার যদি চুল ঘন করার উপায় সংক্রান্ত কোন প্রশ্ন, অভিযোগ বা পরামর্শ থাকে তাহলে কমেন্ট করে জানিয়ে দিন।

    অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

    3 Comments

    দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন emoji

    টেকইনফো এ-আই কী?